মনে আছে তো সেই ললনার কথা, গত গল্পে যে আমাকে প্রেমের প্রস্তাব দেয় !! যাই হোক, সবাইকে বিদায় জানিয়ে সেই ললনার হাত ধরে আমি পাড়ি জমালাম আমেরিকায় (সব খরচা সেই মেয়ে বহন করবে এই শর্তে)। প্লেনে কথায় কথায় জানতে পারলাম, ললনার বাবা আমেরিকার লুইজিয়ানা অঙ্গরাজ্যের নাগরিক। সেই লুইজিয়ানা যা আমেরিকা ফ্রান্সের কাছ থেকে কিনেছিলো ( তাইতো সুন্দরী ফ্রেঞ্চ ভাষায় কথা বলে)। মেয়ে আবার মার্ক টোয়েনের (আমেরিকান সাহিত্যিক)লেখার মহা ভক্ত। আমি তো বিসিএসের প্রিপারেশন নিতে গিয়ে মার্ক টোয়েনের নানা তথ্য মুখস্ত করেছি, তাই আলাপটাও জমছিলো ভালো। মেয়েটার আবার জেনারেল নলেজে ব্যাপক আগ্রহ। খানিক বাদে বলা নেই, কওয়া নেই ধুম করে আমাকে জিজ্ঞেস করে, বলো তো আমেরিকার স্বাধীনতা দিবস কবে? আমি একটু টাশকি খেলেও উত্তর দিলাম ১৭৭৬ সালের ৪ জুলাই। ও আচ্ছা, এবার বলতো, আমেরিকা তার সংবিধান রচনা করে কবে?…এ কেমন মেয়ে বাবা যাই হোক আমি মুখটা পাথরের মতো করে বললাম ১৭৮৯ সালে। পারসো, আরেকটা ধরি, আমেরিকার পতাকায় কয়টা রেখা?…১৩ টা।
মেয়েটা আরেকটা প্রশ্ন করতে যাচ্ছিল, আমি হাত তুলে তাকে থামালাম। অনেক হয়েছে এবার আমার পালা। আমি প্রশ্ন করি, তুমি উত্তর দাও মেয়ে। বলোতো, আমেরিকার নারীরা কবে ভোটাধিকার পায়? মেয়েটাও কি কম যায়, চটপট করে বললো, ১৯২০ সালে। আমিও হাল ছেড়ে দিবো না, আরেকটা কঠিন প্রশ্ন করলাম, সিনেটের আসন সংখ্যা কত?…মেয়ে মুখে ফেস পাউডার মাখতে মাখতে বললো, ১০০ টা। উফফ, কি মেয়েরে বাবা, বেল দিতেসেই না। যাই হোক, আমি বুঝে গেলাম ললনাকে অত সহজে আটকানো যাবে নাহ। তাই পরের প্রশ্নটা একটু কঠিনই করলাম, আমেরিকার কোন কোন প্রেসিডেন্ট আতাতায়ীর হাতে মারা যান? সুন্দরী এক গাল হেসে ব্যাগ থেকে মাশকারা বের করে চোখে লাগাতে লাগাতে উত্তর দিলো-৪ জন, আব্রাহাম লিংকন, জেমস এগারফিল্ড, উইলিয়াম ম্যাককিনলে ও জন এফ কেনেডি। আমি চুপচাপ বসে মেয়েটার চোখে মাশকারা লাগানো দেখছিলাম। এই মেয়েকে হারানো আমার পক্ষে সম্ভব নাহ !!

হঠাত মেয়েটা গ্রাউন্ড জিরো… গ্রাউন্ড জিরো( টুইন টাওয়ার আগে যেখানে ছিলো) বলে চেচাতে লাগলো। আমার চারপাশের সিনারিও দ্রুত পাল্টাতে থাকলো। আমি যেটাকে প্লেন ভাবছিলাম সেটা আসলে নীলক্ষেতের বিসিএস কোচিং এর ক্লাস্রুম। ক্লাসে স্যার জিরো…জিরো বলে কি যেন অংক বোঝাচ্ছে। আর সেই ললনা……থাক সামনে ৩৭ তম প্রিলি !!

কৃতজ্ঞতা স্বীকারঃ সাগর রহমান

By Master

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *