সুপারমুন কী?

সুপারমুনের বৈজ্ঞানিক নাম হচ্ছে ‘পেরিগি মুন’। পেরিগি অর্থ হচ্ছে ‘পৃথিবীর নিকটতম’। চাঁদ যখন পূর্ণ পূর্ণিমায় থাকে এবং বার্ষিক প্রদক্ষিণের সময় পৃথিবীর কাছাকাছি চলে আসে, তখন একে সুপারমুন বলা হয়। পৃথিবীর কাছাকাছি আসায় এই চাঁদকে স্বাভাবিক পূর্ণিমার চাঁদের তুলনায় বড় ও বেশি উজ্জ্বল দেখায়।
.
আজ রাতে আকাশে একবার চোখ মেলুন। ৬৮ বছরের মধ্যে সবচেয়ে উজ্জ্বল চাঁদ দেখার সুযোগ হাতছাড়া করবেন না! আজ সুপারমুন। রাতের আকাশে চাঁদের সৌন্দর্যপিপাসু মানুষের জন্য আজ বিশেষ রাত। চাঁদের এ রকম উজ্জ্বলতম রূপ শেষবার দেখা গিয়েছিল ১৯৪৮ সালে। আবার দেখা যাবে ১৮ বছর পর। ২০৩৪ সালের ২৫ নভেম্বর।
.
নাসার তথ্য অনুযায়ী, ফুল মুন বা পূর্ণিমা ঘটবে (১৩: ৫২ জিএমটি) বাংলাদেশ সময় ৭টা ৫২ মিনিটে।
.
.
জ্যোতির্বিদেরা আশা করছেন, আজ সোমবার চাঁদ পৃথিবীর ২ লাখ ২১ হাজার ৫২৩ মাইলের মধ্যে আসবে। ব্যতিক্রমী ও বড় আকারের এই চাঁদ সুপারমুন নামে পরিচিত।
বাংলাদেশ অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সোসাইটির ভাষ্য, বাংলাদেশ থেকেও আজ রাতে সুপারমুন দেখা যাবে। আকাশ পরিষ্কার থাকলে সব এলাকা থেকেই চাঁদের এ শোভা উপভোগ করতে পারবে মানুষ। বাংলাদেশ সময় আজ সন্ধ্যা সাতটা থেকে দেখা যাবে সুপারমুন।
সুপারমুন হলে কী হয়? এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক এফ আর সরকার বলেন, সুপারমুন হলে চাঁদ পৃথিবীর কাছাকাছি আসে। সাধারণ সুপারমুনের ক্ষেত্রে চাঁদ ১২ শতাংশ বড় ও ১৪ শতাংশ উজ্জ্বল দেখায়। কিন্তু এবারের সুপারমুন ১৪ শতাংশ বড় ও ৩০ শতাংশ উজ্জ্বল দেখাবে। সুপারমুন হওয়ার সময় তীব্র জোয়ার-ভাটা প্রত্যক্ষ করা যাবে।
মহাজাগতিক বিবেচনায় গুরুত্বপূর্ণ এ ঘটনা পর্যবেক্ষণের জন্য মুখিয়ে আছেন জ্যোতির্বিদেরা। তাঁদের ব্যাখ্যা অনুযায়ী, চাঁদ পৃথিবীর নিকটতম স্থানে এলেই সুপারমুন দেখা যায়। প্রদক্ষিণরত চাঁদটি নিজের কক্ষপথে পৃথিবীর যত কাছে, ততই বেশি উজ্জ্বল ও বড় আকারে দৃশ্যমান হয়। ডিম্বাকার কক্ষপথের কারণে চাঁদের আকৃতি একেক সময় একেক রকম দেখায়।
জ্যোতির্বিদদের মতে, ১৯৪৮ সালের পর পৃথিবীর এতটা কাছে আসছে চাঁদ। যুক্তরাষ্ট্রে সোমবার ভোরের দিকে এবং এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে সোমবার রাতে সুপারমুন দেখা যাবে। নাসার তথ্য অনুযায়ী, ফুল মুন বা পূর্ণিমা ঘটবে (১৩: ৫২ জিএমটি) বাংলাদেশ সময় ৭টা ৫২ মিনিটে। আজ চাঁদের সঙ্গে পৃথিবীর দূরত্ব হবে ৩ লাখ ৫৬ হাজার ৫০৮ কিলোমিটার।
আমাদের সৌরজগতের মধ্যে পঞ্চম বৃহত্তম উপগ্রহ হচ্ছে পৃথিবীর উপগ্রহ চাঁদ। পৃথিবীর বাইরে এখন পর্যন্ত চাঁদেই মানুষের পা পড়েছে। গবেষকদের মতে, মঙ্গল গ্রহের আকৃতির কোনো বস্তু পৃথিবীর সঙ্গে সংঘর্ষ ঘটায় চাঁদের উৎপত্তি হয়েছে।

Add Comment

Required fields are marked *. Your email address will not be published.

one × 5 =