বাংলায় যেখানে ভরসা- । পার্ট – ৪

১।বাংলা সাহিত্যের প্রথম কাব্য গ্রন্থ বা গ্রন্থ কোনটি ?
– চর্যাপদ
২। চর্যাপদ কোন শতকে রচিত হয়েচিল ?
– দশম শতকের মধ্যভাগ থেকে দ্বাদশ শতকের মধ্যে( ৯৫০-১২০০)
৩। কোন শতকে বাংলা সাহিত্যে কবিতা বা পদ্য লেখা শুরু হয় ?
– দশম শতক থেকে অষ্টাদশ
৪। কোন গ্রন্থের ভাষাকে সন্ধ্যাভাষা বলা হয়েছে?
– চর্যাপদ ( হরপ্রসাদ শাস্ত্রী বলেছেন)
৬। বাংলা সাহিত্যের স্তরকে কয়টি স্তরে ভাগ করা হয় ?
– ৩টি। যথা
১। প্রাচীন যুগ > ৯৫০-১২০০
২। মধ্যযুগ >> ১৩৫০-১৮০০।
৩।আধুনিক যুগ>> ১৮০০- আজ পর্যন্ত
৭। মধ্যযুগের সকল সাহিত্যে কিসের প্রাধান্য পেয়েছে?
– দেবতাকেন্দ্রিকতা
৮। মধ্যযুগের শ্রেষ্ট ফসল কোনটি ?
– বৈষ্ণব পদাবলি। (কিন্তু সর্বশ্রেষ্ঠ ফসল >> শ্রীকৃষ্ণকীর্তন
৯। বৈষ্ণব পদাবলির নায়কনায়িকা কারা ?
– রাধা ও কৃষ্ণ।
১০। বাংলা সাহি্ত্যের বিকাশে একজন ইংরেজ পাদ্রী বিশেষ অবদান রাখেন তার নাম কি?
— উইলিয়াম কেরি।
১১।চর্যাপদের সবচেয়ে ভালো কবিতাটি লিখেছেন কে?
– শবরীপাদ
১২। ‘সোণে ভরতী করুণা নাবী।
রুপা থুই নাহিক ঠাবী’’- পঙক্তিটির অর্থ কি?
– আমার করুণা নামের নৌকা সোনায় সোনায় ভরে গেছে। সেখানে আর রুপো রাখার মতো তিল পরিমাণ জায়গা নাই। লিখেছেন >> কম্বলাম্বর পা।
১৩।চর্যাপদের শেষ কবিতাটি কার লেখা ?
– শবরী পা।( ১ম টা লুইপা)
১৪। বাংলা ভাষায় রচিত প্রথম মৌলিক গদ্য রচনার নাম কি?
– প্রভাবতী সম্ভাষণ ( ঈশ্বরচন্দ্র)
১৫। যে সব বঙ্গেত জন্মি হিংসে বঙ্গবাণী
সে সব কাহার জন্ম নির্ণয় ন জানি ।। পঙক্তিটি কার ?
– আবদুল হাকিম ( নুর নামা কাব্যে)
১৬। আব্দুল হাকিমের কয়টি কাব্য পাওয়া যায়?
– ৫টি। ইউসুফ- জুলেখা, নূরনাম, দুর েমজলিশ, লালমোতি সয়ফুলমুলুক , হ্যানিকার লড়াই।
১৭। মহুয়া পালার প্রধান চরিত্র গুলো কি কি?
– মহুয়া, নদের চাঁদ, হুমরা বেদে , সাধু।
১৮। মৈমন সিংহ গীতিকা বিশ্বের কতগুলো ভাষায় মুদ্রিত হয় ?
– ২৩টি।
১৯। জঙ্গনাম কী?
– যুদ্ধকাব্য
২০। মর্সিয়া সাহিত্য কী?
– কারবালা ও িইসলামি বিযোগান্তক কাহিনি নিয়ে মূলত মুসলমানদের রচিত সাহিত্য ।
২১। মর্সিয়া সাহিত্যে একজন হিন্দু কবি অবদান রেখেছিলেন তাঁর নাম কি?
– রাধারমন গোপ। গ্রন্থ: ইমামগণের কেচ্ছা , আফত্ নামা
২১। সোনা রুপা নহে বাপা এ বেঙ্গা পিতল ।
ঘষিয়া মাজিয়া বাপু করেছ উজ্জ্বল।।’’ উক্তিটি কার ?
– মুরারী শীলের {চন্ডীমঙ্গল(মুকুন্দরাম চক্রবর্তী)}
২২। মন্ত্রের সাধন কিংবা শরীর পতন , নগর পড়িলে দেবালয় কি এড়ায় ? উক্তিগুলো কার?
– ভারতচন্দ্র রায়গুনাকর।
২৩। বৈষ্ণব পদাবলীর চারজন মহাকবি কারা ?
– বিদ্যাপতি, চন্ডীদাস জ্ঞানদাস , গোবিন্দদাস ।
২৪। ড. দীনেশচন্দ্র সেন বৈষ্ণব পদাবলীর কতজন কবির কথা বলেছেন?
– ১৬৫।
২৫। বৈষ্ণব পদাবলীতে রাধা ও কৃষ্ণ কে কিসের সাথে তুলনা করা হয়েছে?
– রাধা >. জীবাত্মা , কৃষ্ণ >> পরমাত্মা
২৬। বৈষ্ণব পদাবলীতে কয় প্রকার রসের কথা উল্লেখ করা হয়েছে?
– ৫প্রকার । যথা শান্ত, দাস্য, বাত্সল্য, সখ্য, মধুর।
২৭। বৈষ্ণব পদাবলী যিনি সবার আগে সংকলন করেন তার নাম কি?
– বাবা আউল মনোহর দাস।
২৮। নাথ সাহিত্য কী?
-বাংলা সাহিত্যের মধ্যযুগে শিব উপাসক নাথ- যোগী ও সিদ্ধাচার্যদের রচিত সাহিত্যিই নাথ সাহিত্য হিসে পরিচিত ।
২৯। মুসলমান হয়েও একজন নাথ সাহিত্য লেখেন তাঁর নাম কী ?
– শেখ ফয়জুল্লাহ (গোরক্ষ বিজয়)
৩০। বটতলার পুঁথি কী ?
– দোভাষী পুথিঁ বা পুথি সাহিত্যের অন্য নাম

Add Comment

Required fields are marked *. Your email address will not be published.

four × 4 =