গল্পে গল্পে মহাদেশকে জানা: ইউরোপ-১

ছোট মরিচের ঝাল বেশী, প্রবাদ বাক্যটা শুনেছেন নিশ্চয়? ইউরোপ হলো ছোট মরিচের মতো, গোটা পৃথিবীর মাত্র ৭ ভাগ জুড়ে আছে ইউরোপ। সুন্দরী ইউরোপ আরেকটু হলেই হাফ সেঞ্চুরী করতেন বয়ফ্রেন্ড (পড়ুন দেশ) সংখ্যায় !! মাত্র ২ টার জন্য পারেননি !! তাই ৪৮ টা প্রেমিক (দেশ) নিয়েই তিনি খুশি।

ইউরোপের সবথেকে বড়লোক বয়ফ্রেন্ডের নাম রাশিয়া। যেমন লম্বা (আয়তন) তেমন টাকা (জনসংখ্যা)। সবথেকে গরিব প্রেমিকের নাম ভ্যাটিকান সিটি। ভ্যাটিকানের নিজের ফ্ল্যাটও নাই। থাকেন অন্যের (ইতালি) ফ্ল্যাটে।

সুন্দরী ইউরোপের ৫ টা বয়ফ্রেন্ড আছে যাদের নানা ধরনের স্ক্যান্ডাল আছে। ৫ টা বয়ফ্রেন্ডের নাম হলো, ডেনমার্ক, সুইডেন, নরওয়ে, ফিনল্যান্ড আর আইসল্যান্ড। স্ক্যান্ডাল আছে বলেই তাদের বলে স্ক্যান্ডনেভিয়ান প্রেমিক (পড়ুন দেশ)। আবার কিছু প্রেমিক আছে যারা একটু বিটলা টাইপ। এস্তোনিয়া, লাটভিয়া আর লিথুয়ানিয়া, এই ৩ টা প্রেমিক বেশী বিটলামি করে বলে তাদের বাল্টিক প্রেমিক বলা হয়।

সুন্দরী ইউরোপের আবার অনেক বড় হলুদ জামা (পড়ুন ব্রহত্তম দ্বীপ) আছে, জামাটার নাম গ্রিনল্যান্ড। এটা আবার গিফট করেছে স্ক্যান্ডালবাজ ডেনমার্ক !! তবে গ্রিনল্যান্ডকে দেখতে চাইলে আপনাকে ইউরোপ থেকে বের হতে হবে। ম্যাপ সামনে আছে তো? বেশ, ম্যাপের সব থেকে উপরে বামে পচা হলুদ রঙয়ের গ্রিনল্যান্ডকে এবার আপনি নিশ্চয়ই খুজে পেয়েছেন !!
যাই হোক, গত রোজার ইদে সুন্দরী নতুন জুতা কিনেছেন, বুট জুতা। দেখবেন? বেশ আপনার চোখটা ম্যাপে নিয়ে যান, কি খুজে পেয়েছেন? ভালো করে লক্ষ করুন তো ইতালির ম্যাপটা, ঠিক জুতার মতোই তাইনা !!

কৃতজ্ঞতা স্বীকারঃ সাগর রহমান

Add Comment

Required fields are marked *. Your email address will not be published.

10 + seven =